Back To Blogs | My Blogs | Create Blogs

এই আসরেও নেতৃত্বে ‘না’ মুশফিকের

তিন দলের আসরের জন্য তিনজন অধিনায়ক দরকার। তা সেখানে ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক তামিম ইকবাল ও মাহমুদ উল্লাহর সঙ্গে মুশফিকুর রহিমকেও আরেকটি দলের নেতৃত্ব নিতে বলা হয়েছিল। কিন্তু ১১ অক্টোবর থেকে যে ঘরোয়া আয়োজন দিয়ে প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে ফিরছে বাংলাদেশ, তাতেও নেতৃত্ব দিতে রাজি হননি এই সাবেক অধিনায়ক। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসানই তা জানিয়েছেন সংবাদমাধ্যমকে।

তামিম ও মাহমুদ উল্লাহ একাদশের সঙ্গে তৃতীয় দলটির নাম তাই মুশফিক একাদশ হচ্ছে না, মুশফিক একটি দলে আছে, কিন্তু সে নেতৃত্ব দিচ্ছে না। ওই দলটির অধিনায়ক শান্ত (নাজমুল হোসেন)। কাল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের বিসিবি কার্যালয়ে এসেই সভাপতি জেনেছেন যে এই আসরেও নেতৃত্ব দিতে চান না মুশফিক, মুশফিক নাকি নেতৃত্ব দিতে ইচ্ছুক না। আজকেই সে এটা নিশ্চিত করেছে। না হলে ওর নামও ছিল। মুশফিকের অনিচ্ছায় অধিনায়ক হওয়া নাজমুল জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের দুটি দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচেও নেতৃত্ব দিয়েছেন ওটিস গিবসন একাদশকে।

স্কিল ক্যাম্পের ক্রিকেটারদের পাশাপাশি হাই পারফরম্যান্স স্কোয়াড (এইচপি) এবং গত ফেব্রুয়ারিতে দক্ষিণ আফ্রিকায় অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপজয়ী দলের খেলোয়াড়দেরও তিন দলে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে দেওয়া হয়েছে। বিশ্বজয়ী দলের অধিনায়ক আকবর আলী যেমন পড়েছেন তামিম একাদশে। ডাবল লিগ ভিত্তিক আসরে প্রতিটি দল একে অন্যের বিপক্ষে দুইবার করে খেলবে। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ দুই দল খেলবে ২৩ অক্টোবরের ফাইনাল। আসরের অন্যান্য ম্যাচের মতো এটিও হবে দিবারাত্রির। পার্থক্য বলতে এই ম্যাচটি টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচারিত হবে। বিসিবি প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী জানিয়েছেন, ফাইনাল ম্যাচটি বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রচারিত হওয়ার জোর সম্ভাবনা আছে। প্রতিটি ম্যাচের জন্য রাখা হয়েছে রিজার্ভ ডে-ও। যথারীতি এই তিন দলের খেলোয়াড়-কোচ-কর্মকর্তার পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট সবাই থাকবেন বায়ো-বাবল বা জৈব সুরক্ষা বলয়ের মধ্যেই।

স্কোয়াড
মাহমুদ উল্লাহ একাদশ : মাহমুদ উল্লাহ (অধিনায়ক), নাঈম শেখ, লিটন কুমার দাস, মমিনুল হক, মাহমুদুল হাসান, নুরুল হাসান, সাব্বির রহমান, ইমরুল কায়েস, হাসান মাহমুদ, এবাদত হোসেন, রুবেল হোসেন, মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী, মেহেদী হাসান মিরাজ, রাকিবুল হাসান ও আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। স্ট্যান্ডবাই : আবু হায়দার, সাঞ্জামুল ইসলাম ও হাসান মাহমুদ।

নাজমুল একাদশ : নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), সৌম্য সরকার, সাইফ হাসান, আফিফ হোসেন, মুশফিকুর রহিম, তৌহিদ হৃদয়, ইরফান শুক্কুর, পারভেজ হোসেন, তাসকিন আহমেদ, আল-আমিন হোসেন, আবু জায়েদ, মুকিদুল ইসলাম, নাঈম হাসান, নাসুম আহমেদ ও রিশাদ হোসেন।

স্ট্যান্ডবাই : সুমন খান, সাদমান ইসলাম ও তানভীর ইসলাম।
তামিম একাদশ : তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), তানজিদ হাসান তামিম, মোসাদ্দেক হোসেন, মোহাম্মদ মিঠুন, শাহাদাত হোসেন, ইয়াসির আলী চৌধুরী, আকবর আলী, এনামুল হক, শরীফ উদ্দিন, মুস্তাফিজুর রহমান, সৈয়দ খালেদ আহমেদ, শরীফুল ইসলাম, শেখ মেহেদী হাসান, তাইজুল ইসলাম ও মিনহাজুল আবেদীন আফ্রিদি।


Shakib Khan  

98 Blog posts

Comments