মিথিলা বললেন, যুদ্ধ করে কলকাতা এসেছি

Posted in Entertainment.

Akash Ahmed
10 Friends

করোনার কারণে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের সব ধরনের যোগাযোগ এখনো বন্ধ। আকাশপথ, রেলপথ, সড়কপথসবই বন্ধ। তারপর বিশেষ ব্যবস্থায় ভারতে থাকা স্বামী সৃজিত মুখার্জির কাছে গেলেন বাংলাদেশি অভিনয়শিল্পী মিথিলা। মিথিলার ভাষায়, ভালোবাসার টানে একরকম যুদ্ধ করে তাঁকে সেখানে যেতে হয়েছে। আজ রোববার দুপুরে ভারত থেকে প্রথম আলোকে তেমনটাই জানালেন রাফিয়াত মিথিলা।

সাড়ে পাঁচ মাস পর দেখা হলো মিথিলা ও সৃজিতের। ছবিসংগৃহীত

সাড়ে পাঁচ মাস পর দেখা হলো মিথিলা ও সৃজিতের। ছবিসংগৃহীতবাংলাদেশি অভিনয়শিল্পী মিথিলার সঙ্গে ভারতের পরিচালক সৃজিতের রেজিস্ট্রি বিয়ে হয় গত বছরের ৬ ডিসেম্বর। বিয়ের বিষয়টি শুরুতে তাঁরা দুজনেই গোপন রেখেছিলেন। এরপর কলকাতা শহরে এ বছরের ২৯ এপ্রিল বিবাহোত্তর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এরপরই সৃজিত কাকাবাবু সিরিজের তৃতীয় ছবির কাজে আফ্রিকা চলে যান। মিথিলা ফিরে যান বাংলাদেশে। ঠিক ছিল সৃজিত দেশে ফিরলে আবার ভারতে আসবেন মিথিলা। কিন্তু সৃজিত দেশে ফেরার পর শুরু হয়ে যায় লকডাউন। তাই সাড়ে পাঁচ মাস দুজন দুজনের কাছ থেকে আলাদা ছিলেন। উপায় খুঁজছিলেন কীভাবে এক হওয়া যায়। শেষ পর্যন্ত দুই দেশের হাইকমিশনের কর্মকর্তাদের আন্তরিক সহযোগিতায় মিথিলা ও সৃজিত একত্র হলেন।

করোনার এই সময়ে ভারতের স্বামীর বাড়িতে যাওয়ার বিষয়টিকে মিথিলা যুদ্ধের সঙ্গে তুলনা করলেন। প্রথম আলোকে আজ দুপুরে কলকাতা থেকে বললেন, যুদ্ধ করে কলকাতা এসেছি। এখন তো কোনো ফ্লাইট চালু নেই। স্পেশাল অনুমতি নিয়ে এসেছি। আমার পরিবার যেহেতু এখানে, তাই স্পেশাল পারমিশন দিয়েছে।

সৃজিতের কলকাতার বাড়ির নামফলকে এখন যুক্ত হয়েছে মিথিলা ও আইরার নাম। ছবি-সংগৃহীত

সৃজিতের কলকাতার বাড়ির নামফলকে এখন যুক্ত হয়েছে মিথিলা ও আইরার নাম। ছবি-সংগৃহীতমিথিলা জানালেন, গতকাল শনিবার সকালে বিমানে করে ঢাকা থেকে যশোর। এরপর যশোর থেকে সড়কপথে বেনাপোলে যান। সেখানে এসেছিলেন সৃজিত। তারপর বেনাপোল সীমান্তে আনুষ্ঠানিকতা সেরে সড়কপথে কলকাতায় স্বামীর বাড়িতে পৌঁছান।

বেনাপোল সীমান্তে পৌঁছানোর পর মিথিলা, আইরা ও সৃজিতের সঙ্গে অন্যরা। ছবি-সংগৃহীত

বেনাপোল সীমান্তে পৌঁছানোর পর মিথিলা, আইরা ও সৃজিতের সঙ্গে অন্যরা। ছবি-সংগৃহীত

Tags: ,
Akash Ahmed Articles

Recent

Recent Articles From: Akash Ahmed

Popular

Popular Articles From: Akash Ahmed